অপরাধ

  admin2 ৪ সেপ্টেম্বর ২০২২ , ১১:৪৪:২৬ 54

কুষ্টিয়ার ভেড়ামারায় পূর্ব শত্রুতার জেরে ৬০ শতক পানের বরজ কেটে সাফ

সৈকত আহমেদ ভেড়ামারা প্রতিনিধি

পূর্ব শত্রুতার জের ধরে কুষ্টিয়া জেলা ভেড়ামারা উপজেলার বাহাদুরপুর ইউনিয়নের রায়টা গ্রামের মৃত কেরামত আলী মহলদারের ছেলে মোঃ আলেক মহলদার ও তার ভাইয়ের নামে ৬০ শতক জমির পান বরজের পান গাছ, অন্যান্য বরের ভিতরে লাগানো গাছ-গাছালী কেটে মাটিতে মিশিয়ে ফেলার অভিযোগ উঠেছে একই এলাকার রনি সরকার ও তার ক্যাডার বাহিনীর বিরুদ্ধে।

গত শনিবার সকালে ঘটনাটি ঘটেছে। মামলা সূত্রে ও সরেজমিনে গিয়ে ঘটনার জানা যায়, উপজেলার বাহাদুরপুর ইউনিয়নের রায়টা গ্রামের মৃত কেরামত আলীর মহলদারের ছেলে মোঃ আলেক মহলদার ও তার ভাইদের নামে ৬০ শতক নিজ নামীয় জমির উপর তৈরী কৃত পানের বরজে জমিজমা সংক্রান্ত বিরোধের জের ধরে হামলা চালিয়ে প্রায় ১০ লক্ষাধিক টাকার ক্ষতি সাধন সহ প্রাণ নাশের হুমকি প্রদান করছেন একই গ্রামের শাহজাহান সরকারের বখাটে পূত্র রনি, শরিফ, বদি ও রবি সহ রনির ক্যাডার বাহিনী।

জানা যায়, আলেক মহলদার নামের এই অসহায় পরিবারের রায়টা মৌজায় মোট শতক জমির উপরে তৈরীকৃত ২০০ পিলি পানের বরজে প্রায় ১০ লক্ষাধিক টাকার ক্ষতি সাধন করেছে তারা।

এ বিষয়ে গত শনিবার রাতেই ভেড়ামারা থানায় অভিযোগ দায়ের করেন ভুক্তভোগী পরিবার। কিন্ত প্রভাবশালী ও অর্থশালী আসামীদের কারণে কোন অভিযোগ থানায় এন্ট্রি না করায় বাদী মোঃ আলেক মহলদার ঘটনার সাথে জড়িত ২৮ জন আসামীর নামে কুষ্টিয়ার সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট আদালতে একটি মামলা দায়ের করেছেন।

মামলার আসামীরা হলেন,মোঃ শাহজাহান সরকারের ছেলে রনি সরকার, শরিফ সরকার, বদির সরকার, রবি সরকার, বদির সরকারের ছেলে জিম সরকার, মৃত শামসুল সরকারের ছেলে বাচ্চু সরকার, শফি সরকার, মৃত আজের এর ছেলে সবির উদ্দিন, নজু, মোশারফ (মশা), মৃত সামছের এর ছেলে সালাস, মোঃ সবির উদ্দিন এর ছেলে জার্মান, রফিকুল, হারেজুল, মৃত হোসেন লস্কর এর ছেলে লুৎফর লস্কর, লুৎফর লস্কর এর ছেলে রায়হান, মিনার, মৃত ছামাদ এর ছেলে শ্যামল, স্বপন, বাহাদুরপুর মেঘনা পাড়ার মৃত আমজাদের ছেলে মশিউর, কামাল, ফিরোজ, মসিউর এর ছেলে মুন্নাফ, রায়টা গ্রামের কামালের ছেলে আকাশ, মোশারফ (মসা)র ছেলে কাজল, শফির ছেলে আলিফ, সবির উদ্দিনের ছেলে হামিদুল, নজুর ছেলে জুয়েল। বর্তমানে আলেক মহলদার ও তার পরিবার চরম নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছে বলে বাদীর পরিবার জানান।

আরও খবর:

Sponsered content