1. admin@deshsangbad24.com : admin :
রবিবার, ২১ এপ্রিল ২০২৪, ০৮:২৭ পূর্বাহ্ন

রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসনে বিশ্বকে কঠোর পরিশ্রম করতে হবে

প্রথম নিউজ ডেস্ক
  • প্রকাশিত : শুক্রবার, ১২ নভেম্বর, ২০২১
  • ১৯৪ জন দেখেছে

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বাংলাদেশ ও বিশ্বের নিরাপত্তা ঝুঁকি এড়াতে রোহিঙ্গাদের দ্রুত তাদের মাতৃভূমি মিয়ানমারে প্রত্যাবাসন নিশ্চিত করতে বিশ্ব নেতৃবৃন্দের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন।

তিনি বলেন, “এই (রোহিঙ্গা) মানুষগুলো যাতে দ্রুত মিয়ানমারে ফিরে আসে তা নিশ্চিত করতে বিশ্বকে কঠোর পরিশ্রম করতে হবে,” তিনি বলেন। অন্যথায়, সংকটের কারণে সৃষ্ট নিরাপত্তা ঝুঁকি আমাদের সীমান্তে সীমাবদ্ধ থাকবে না। আমরা ইতিমধ্যেই এর লক্ষণ দেখতে পাচ্ছি। ”

বৃহস্পতিবার (১১ নভেম্বর) বিকেলে প্যারিস পিস ফোরাম, ২০২১ মাইন্ডিং দ্য গ্যাপ: ইমপ্রুভিং গ্লোবাল গভর্নেন্স আফটার কোভিড-১৯-এর চতুর্থ সংস্করণে ভাষণ দেওয়ার সময় প্রধানমন্ত্রী এ আহ্বান জানান।

শেখ হাসিনা বলেন, বাংলাদেশ ২০১৭ সালের আগস্টে মিয়ানমার কর্তৃক জোরপূর্বক বাস্তুচ্যুত রোহিঙ্গাদের সাময়িক আশ্রয় প্রদানের মাধ্যমে একটি বড় আঞ্চলিক সংকট এড়াতে সহায়তা করেছে। তাদের মধ্যে ১০ লাখেরও বেশি মানুষ অনিশ্চিত ভবিষ্যতের মুখোমুখি।

ইন্দো-প্যাসিফিক অঞ্চলকে অবশ্যই সবার জন্য শান্তি ও সমৃদ্ধির এলাকা হতে হবে উল্লেখ করে শেখ হাসিনা বলেন, এই অঞ্চলের জন্য আমাদের দৃষ্টিভঙ্গি হল এটিকে মুক্ত, উন্মুক্ত, শান্তিপূর্ণ, নিরাপদ এবং অন্তর্ভুক্ত করা।

একটি টেকসই ভবিষ্যত নিশ্চিত করতে এই অঞ্চলের প্রধান নেতাদের অতীত থেকে শিক্ষা নেওয়া এবং বর্তমান সময়ে দায়িত্বশীলভাবে কাজ করা উচিত উল্লেখ করে তিনি বলেন, “বাংলাদেশ পারস্পরিক শ্রদ্ধা ও বোঝাপড়ার ভিত্তিতে আমাদের সকল অংশীদারকে এতে জড়িত করতে চায়।”

প্রধানমন্ত্রী বলেন, বাংলাদেশ ঐতিহাসিক শান্তি চুক্তির মাধ্যমে ১৯৯৭ সালে পার্বত্য চট্টগ্রামে সশস্ত্র সংঘাতের অবসান ঘটিয়েছে। আমরা সব ধরনের সন্ত্রাসবাদের বিরুদ্ধে ‘জিরো টলারেন্স’ নীতিতে প্রতিশ্রুতিবদ্ধ। এর বিস্তার নিয়ন্ত্রণে আমরা কমিউনিটি পর্যায়ে বিনিয়োগ করছি।

তিনি বলেন, বাংলাদেশ বহু বছর ধরে জাতিসংঘ শান্তিরক্ষা কার্যক্রমে সৈন্য ও পুলিশ অবদানকারী দেশের তালিকার শীর্ষে রয়েছে এবং মধ্যপ্রাচ্য শান্তি প্রক্রিয়ায় ফিলিস্তিনিদের সমর্থন দিয়ে সেই অবস্থান বজায় রেখেছে।

“২২ বছর ধরে, শান্তির সংস্কৃতির পক্ষে ওকালতি হচ্ছে যুদ্ধের বিরুদ্ধে আমাদের পাল্টা-আখ্যান,” তিনি বলেছিলেন। আমি আপনাকে টেকসই উন্নয়নের জন্য বিশ্বব্যাপী অস্ত্র প্রতিযোগিতায় ব্যবহৃত সম্পদ ব্যবহার করার আহ্বান জানাচ্ছি। ”

প্রধানমন্ত্রী বলেন, কোভিড-১৯ মহামারী আন্তর্জাতিক স্বাস্থ্য ও আর্থিক ব্যবস্থার গভীর-মূল দুর্বলতাকে উন্মোচিত করেছে। এটি আবার ধনী-গরিবের ব্যবধান কমিয়ে দিয়েছে। আমাদের অবশ্যই মনে রাখতে হবে এবং সেই ফাঁকটি বন্ধ করতে হবে।

তিনি লক্ষ করেছিলেন যে লক্ষ লক্ষ মানুষকে টিকা দিয়ে গ্রহটিকে রক্ষা করা সম্ভব নয়। জীবন, বাড়ি এবং জীবিকা বাঁচাতে আমাদের জলবায়ুর উচ্চাকাঙ্ক্ষা বাড়াতে হবে।

শেখ হাসিনা বলেন, আন্তর্জাতিক সীমান্তে আটকে পড়া শত শত অভিবাসীর জন্য একটি সমাধান খুঁজে বের করতে হবে। আমাদের অবশ্যই জাতি, বর্ণ ও জাতিগত ভিত্তিতে বৈষম্যের অবসান ঘটাতে হবে। আমাদের অবশ্যই নারী ও মেয়েদের সমস্ত কাঁচের দেয়াল ভাঙ্গার অনুমতি দিতে হবে। আমাদের সবার জন্য উপযুক্ত চাকরির সুযোগ তৈরি করতে হবে। আমাদের কাজ এবং সম্পদের সাথে তাল মিলিয়ে চলতে হবে।

এ প্রসঙ্গে তিনি বলেন, একটি আইনি বহুপাক্ষিক ব্যবস্থা থাকতে হবে যা সকল মানুষের জন্য ন্যায্য ও অর্থবহ হতে হবে।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, বাংলাদেশ বিশ্বাস করে যে বিশ্বে শান্তিই জাতীয় নিরাপত্তার শ্রেষ্ঠ গ্যারান্টি। আমরা সংঘাত এড়াই এবং সংঘাতের শান্তিপূর্ণ সমাধান চাই।

তিনি উল্লেখ করেন, বাংলাদেশ তার প্রতিবেশীদের সঙ্গে আলোচনা ও আইনি মাধ্যমে স্থল ও সমুদ্র সমস্যার সমাধান করেছে। আমরা আমাদের ভূমি অন্য কোনো দেশের বিরুদ্ধে ক্ষতিকর কাজে ব্যবহার হতে দেব না।

শেখ হাসিনা বলেন, বিশ্ব এখনও অনেক সংঘাতে জর্জরিত এবং মহামারীর পরে আন্তর্জাতিক শান্তি কূটনীতির উদ্ভব হওয়া প্রয়োজন। পুরানো এবং নতুন দ্বন্দ্বের একটি ন্যায্য এবং দীর্ঘস্থায়ী সমাধান খুঁজে বের করার জন্য আমাদের একটি যৌথ দায়িত্ব রয়েছে।

জাতিসংঘ নিরাপত্তা পরিষদের স্থায়ী সদস্য হিসেবে তিনি বলেন, “আন্তর্জাতিক শান্তি ও নিরাপত্তায় ফ্রান্সের একটি অনন্য স্থান রয়েছে।”

“আমরা যে পৃথিবীকে আমাদের বাড়ি বলে ডাকি সেটিকে উত্তর এবং দক্ষিণের মধ্যে ভাগ করতে হবে না,” তিনি বলেছিলেন। একটি গ্রহের নাগরিক হিসাবে, আমাদের অবশ্যই সহানুভূতি, মানবতা এবং বৈচিত্র্য উদযাপনের মাধ্যমে আমাদের ঐক্যকে চ্যাম্পিয়ন করতে হবে। ”

ফোরামটি ফরাসি রাষ্ট্রপতি ইমানুয়েল মাখো দ্বারা আহবান করা হয়েছিল এবং ফোরামের সভাপতি প্যাসকেল ল্যামি সভাপতিত্ব করেছিলেন। অনুষ্ঠানে বক্তৃতা করেন নাইজেরিয়ার প্রেসিডেন্ট মুহাম্মদু বুহারি এবং মার্কি ভাইস প্রেসিডেন্ট কমলা হ্যারিস।
তাহলে যেখানে বনের পশুরা জুমুআর সময়কে ভয় পায়, সেখানে একজন মুমিন মুসলমানের কী ধরনের ভয় থাকা উচিত? ইবাদতের কাজে মনোনিবেশ করা জরুরি।

বিশেষ করে শুক্রবারের আসর থেকে মাগরিব পর্যন্ত সময় মসজিদে কাটানোর পর সঠিকভাবে হাদিস অনুসরণ করে নিজেদের ক্ষমা করানো এবং কাঙ্খিত চাহিদা পূরণের চেষ্টার কোনো বিকল্প নেই।

আল্লাহ তাআলা মুসলিম উম্মাহকে হাদীছের আলোকে জুমার আমল করার তাওফীক দান করুন। হাদিস মেনে চলার তাওফিক দান করুন। আমীন।

সংবাদ টি শেয়ার করে সহযোগীতা করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই বিভাগের আরো সংবাদ

Tags

এবার প্রাথমিক ডিম-দুধ-মৌসুমী ফল খাওয়ানোর প্রস্তাব করা হয়েছে কংগ্রেসে ভাঙন: মমতা ঘোলা জলে 'বড় মাছ' ধরার চেষ্টা করছেন কাবুলের মসজিদ বিস্ফোরণে দুইজন নিহত কুরআনের মানুষের অধিকার কি? কোল্ড স্টোরেজ মালিকরা প্রতি কেজি আলুর ভর্তুকি চান ৯টাকা খুলনায় পেঁয়াজের দাম প্রতি কেজিতে ১০ টাকা বেড়েছে জাপানিদের বাড়ির বাইরে ভ্রমণের জন্য লাগবে টিকা সনদ জিমেইল সুরক্ষিত রাখতে যা করতে হবে ঝাল বেড়েছে সবুজ মরিচে ২৪০ টাকা কেজি! তিনজন আহত দলে ফেরার পর সাকিব বোলিং এবং ফিল্ডিংয়ে শক্তিশালী ছিলেন নির্বাচন কমিশন রাজ্য সরকারকে পুজো কমিটিগুলিকে ৫০ হাজার টাকা দেওয়ার অনুমতি পাকিস্তানি তালেবানদের শান্ত করার জন্য ইমরানের উদ্যোগ পিকআপ সিটের পিছনে ৩৮ কেজি গাঁজা পাওয়া গেছে বিএনপি চোখ হারানো নেতা শাহজাহানের সঙ্গে ফখরুলের সাক্ষাৎ বিবর্ণ মোস্তাফিজ; চেন্নাইয়ের ১৮৯ রতুরাজের সেঞ্চুরি ব্রিটিশ আমেরিকান তামাক: গবেষণা ক্ষতিকর তামাকের প্রচারের দিকে পরিচালিত করে ভিপি নূরকে 'অনৈতিক' বলার কোন প্রমাণ নেই ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজে করোনা ইউনিটে আরও ৮ জনের মৃত্যু মাঝ আকাশে বিমান-হেলিকপ্টার সংঘর্ষে দুইজন নিহত মেয়র আতিক উচ্চশিক্ষায় গবেষণার গুরুত্বের প্রতি আহ্বান জানান যাত্রাবাড়ীতে বর্জ্য ব্যবসার প্রতিবাদে মানববন্ধন ও সড়ক অবরোধ রাজধানীর একটি বাড়ির ছাদ থেকে পড়ে এক কিশোরের মৃত্যু রাজধানীর কুড়িলে ট্রেনের ধাক্কায় একজন নিহত হয়েছেন রাজধানীর বনানীর কড়াইল বস্তিতে আগুন রিং আইডির সাইফুল দুই দিনের রিমান্ডে রিয়েলমি জিটি মাস্টার হল দেশের প্রথম স্ন্যাপড্রাগন ৭৭৮জি ৫জি প্রসেসর লিবিয়া ইউরোপে যাওয়ার পথে বাংলাদেশিসহ ৫০০ অভিবাসীকে আটক শতভাগ প্রবীণ নাগরিক ভাতার আওতায় আসবেন শ্যামনগরে সবজি বাজার সুরক্ষার দাবিতে মানববন্ধন সবাইকে বাঙালিয়ানা চর্চা পুনরুজ্জীবিত করতে হবে: ইনু সাতক্ষীরা জেলা প্রশাসনের উদ্যোগে শেখ রাসেল দিবস পালিত হয়েছে সাতক্ষীরায় র‌্যাব-৬ এর অভিযানে যাবজ্জীবন সাজাপ্রাপ্ত মাদক ব্যবসায়ী আটক সাতক্ষীরায় সবজি উৎপাদন কৌশল সম্পর্কে কৃষকদের প্রশিক্ষণ সাতক্ষীরার উপকূলীয় অঞ্চল প্রতাপনগরের মানুষ ভাসমান সেতু পেয়ে খুশি সাতক্ষীরার ভোমরা স্থলবন্দর আধুনিকায়ন বিষয়ে মতবিনিময় সাতক্ষীরার সিনিয়র জেলা ও দায়রা জজ শেখ মফিজুর রহমান বলেন; বিচার বিভাগ অন্ধকারের বিরুদ্ধে ভোরের সূর্য সাতক্ষীরা সরকারি কলেজের প্রধান ফটকে কোম্পানীর সেই সাইনবোর্ড বিক্ষুব্ধ ছাত্রদের প্রতিবাদে অপসারণ সাতক্ষীরায় আ.লীগের বর্ধিত সভায় চেয়ারম্যান প্রার্থীরা তালিকা নিয়ে হট্টগোল! সাতক্ষীরায় ডিবি পুলিশের অভিযানে ইয়াবাসহ আটক ২ সাতক্ষীরায় বিজিবি'র অভিযানে ২৫ পিস স্বর্ণের গহনা আটক সাতক্ষীরায় যথাযোগ্য মর্যাদায় পালিত হয়েছে মহান বিজয় দিবস সাতক্ষীরায় র‌্যাব-৬ এর অভিযানে সেনাবাহিনীর এক ভূয়া সদস্য আটক সাতক্ষীরায় র‌্যাবের অভিযানে বাঘের চামড়া উদ্ধার ৪০ দিন জামাতে প্রার্থনা করলে কি লাভ?
© All rights reserved © 2023 দেশ সংবাদ ২৪
প্রযুক্তি সহায়তায় রিহোস্ট বিডি